SERP কি? সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেইজ কি?

যারা শুরুতে এসইও নিয়ে পড়াশুনা করতে শুরু করেন তাদের অনেকের এই SERP কি সেটা নিয়ে দ্বিধা-ধন্ধে ভুগেন। আজকে আমাদের কন্টেন্ট সাজিয়েছি আপনাদের জন্য, যারা এসইও নিয়ে জানতে চাচ্ছেন, শিখতে চাচ্ছেন বা বুঝতে চাচ্ছেন। এই SERP এসইও এর ক্ষেত্রে এনেক বড় ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই আর দেরি না করে চলুন শুরু করা যায়! 

SERP কি?

সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেইজ বা সংক্ষেপে SERP। যখন কেউ সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে, গুগল, কোন কিছু সার্চ দেয় তখন যে ওয়েব পেইজ গুলো আসে সেগুলোই হচ্ছে সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেইজ। অর্থাৎ ইউজার যখন সার্চ ইঞ্জিনে কোন কিছু জিজ্ঞেস করে, তখন সার্চ ইঞ্জিন গুলো যে রেজাল্ট শো করায় সেটি হচ্ছে SERP বা সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেইজ। 

প্রতিটি SERP ইউনিক বা একটি অন্যটি থেকে আলাদা, যদিও একই কি-ওয়ার্ডে সার্চ করা হয়। কারন সার্চ ইঞ্জিন গুলো প্রতিটি রেজাল্ট দেখানোর আগে অসংখ্য বিষয় নিয়ে কাজ করেন, ব্যবহারকারী কোথায় বসে আছেন, কোথা থেকে সার্চ করছে, ব্রাউজিং হিস্ট্রি, এবং সোশ্যাল সেটিংস ইত্যাদি ইত্যাদি অনেক ফেক্টর রয়েছে। এই সব তথ্য উপাত্তের উপর ভিত্তি করে মূলত সার্চ ইঞ্জিন গুলো রেজাল্ট দিয়ে থাকে। 

ঘটনা ১

সাকিব বাংলাদেশে বসবাসকারী নাগরিক, বর্তমানে দেশে বিপিএল খেলা চলছে। তাই সাকিব পড়া-শোনার পাশাপাশি খেলার স্কোর দেখার জন্য মুখিয়ে থাকে। আগের বছরের খেলার স্কোর দেখতে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে যেতে হতো যেমন ক্রিকইনফো, ক্রিকবাজ ইত্যাদি এখন আর সেটি করা লাগে না। এখন শুধু গুগল সার্চ ইঞ্জিনে সার্চ করলেই সব তথ্য চলে আসে। সে শুধু গুগলে ‘live score’ লেখলেই স্পেসিফিক ভাবে বিপিএলের সব খবরা খবর চলে আসে। কিন্তু আগে এমন হতো না, পুরো বিপিএলের কথা মেনশন না করে দিলে গুগল বিপিএল খেলার কোন আপডেট দিতো না। সে পূর্বে সার্চ করতো ‘Live score of BPL match’।

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন কি?

ঘটনা বিশ্লেষণ  

আমরা যদি আগের ঘটনাটা বিশ্লেষণ করার চেষ্টা করি তাহলে আমাদের অনেক কিছু বুঝতে সুবিধা হবে। যেমন দেখুন, শুরুর দিকে সাকিবের কি-ওয়ার্ড ছিলো ‘Live score of BPL match’ তখন সাকিবকে স্কোর দেখতে হলে স্পেসিফিক ভাবে বিপিএল কথাটা মেনশন করতে হতো। কিন্তু এখনকার কি-ওয়ার্ড যদি দেখায় চেষ্টা করি যেমন ‘live score’, শুধুমাত্র এই কি-ওয়ার্ড সার্চ করার সঙ্গে সঙ্গে গুগল অটোমেটিক বুঝে গেছে সাকিব কি চায়। এখন প্রশ্ন হচ্ছে গুগল কিভাবে ব্যাপারটি টের পেলো। 

গুগল সাকিবের সোশ্যাল মিডিয়ার সাথে কোন না কোন অংশে সংযুক্ত আছে। স্পেসিফিক ভাবে বললে বলা যায় ফেসবুকের সাথে সংযুক্ত আছে। এখন ধরুন সাকিব ফেসবুকে বিপিএলের পেইজে লাইক দিয়ে রেখেছে বা বিপিএল পেইজের সব পোস্টে তার এঙ্গেইজমেন্ট আছে। এই তথ্য কিন্তু গুগলের কাছে আছে।

 গুগল মনে করছে,

  • যেহেতু সাকিব বিপিএল পেইজে সব সময় একটিভ তার মানে নিশ্চই তার বিপিএলের প্রতি আকর্ষন আছে।
  • সে যখন সার্চ করছে তখন তার লোকেশন দেখাচ্ছে বাংলাদেশ থেকে।  
  • যেহেতু সে বাংলাদেশে আছে তখন তার সবার আগে বাংলাদেশে কি খেলাধুলা চলছে তার আপডেট বেশি প্রয়োজন।
  • যেহেতু সে সন্ধ্যা ৭ টার দিকে গুগল সার্চ করছে, তখন একমাত্র তার লোকেশনের সবচেয়ে নিকটে খেলা চলছে বিপিএল। তার মানে সাকিবের বিপিএলের তথ্য প্রয়োজন। 

সার্চ ইঞ্জিন গুলো এভাবে অনেক ডাটা বিশ্লেষণ করে তাদের ব্যবহারকারীদের নিকট সবচেয়ে সুবিধা-জনক ডাটা পাঠায়, এতে করে সবার উপকার হয়ে থাকে। সাকিবদের ও সময় বাঁচে আর সার্চ ইঞ্জিনের প্রতিও মানুষের বিশ্বাস স্থাপন হয়।

সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং কি?

এটি সার্চ ইঞ্জিনের ধরনের উপর ভিত্তি করে পাঠকদের বোঝানোর সুবিধার্থে ব্যবহার করেছি। বাস্তবে এই নিয়ম গুগল ফলো করতেও পারে নাও করতে পারে। বিষয়টি পাঠক স্টোরি হিসেবে দেখবেন। কারন গুগল কিভাবে সার্চ ইঞ্জিনে রেজাল্ট শো করায়, তা তারা কখনো প্রকাশ করেন না। 

সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেইজ কত প্রকার? 

সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেইজ দুই ধরনের হয়ে থাকে। যেমন- 

  • অর্গানিক রেজাল্ট 
  • পেইড রেজাল্ট 

নিল রঙের মার্ক করা অংশটি পেইড রেজাল্ট, অন্যটি অর্গানিক রেজাল্ট 

অর্গানিক রেজাল্ট

অর্গানিক সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেইজ হচ্ছে – সাধারণ ভাবে জেনারেট করা সার্চ রেজাল্ট। অর্থাৎ সার্চ ইঞ্জিনের নিজস্ব বুদ্ধিমত্তা এবং ডাটা বিশ্লেষণের মাধ্যমে যে রেজাল্ট শো করায় তাকেই অর্গানিক রেজাল্ট বলে থাকে। যে সকল ওয়েবসাইটের স্কোর ভালো অর্থাৎ যথেষ্ট পরিমানে ভালো রিসোর্স রয়েছে, ভালো অথরিটি রয়েছে, বিশ্বাসযোগ্যতা রয়েছে, ব্যাকলিং এবং ভালো লেখক রয়েছে সেই সকল বিষয় বিবেচনায় নিয়ে যে রেজাল্ট দেখায় তাকে অর্গানিক রেজাল্ট বলে থাকে। 

সার্চ ইঞ্জিনে অর্গানিক উপায়ে রেজাল্ট শো করানোর প্রক্রিয়াকে বলা হয়ে থাকে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন। অর্থাৎ সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন ট্র্যাটেজি ফলো করে যে কোন ওয়েবসাইটকে অনলাইনে অর্গানিক উপায়ে র‍্যাঙ্ক করানো যায়। 

পেইড রেজাল্ট 

পেইড রেজাল্ট হচ্ছে অ্যাড এর মাধ্যমে দেখানো সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট। অর্থাৎ অ্যাড অংশে কোন রেজাল্ট দেখাতে হলে সার্চ ইঞ্জিন গুলোকে পেমেন্ট করতে হয়। আর পেমেন্টের মাধ্যমে অ্যাড দেখানোর প্রকৃয়ায় যে রেজাল্ট সার্চ ইঞ্জিন শো করে তাকে পেইড সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট বলে থাকে। 

সার্চ ইঞ্জিন কিভাবে কাজ করে?

আর যে মার্কেটিং এর মাধ্যমে এই পেইড রেজাল্ট তৈরি করা হয়, তাকে বলে পিপিসি মার্কেটিং। এই পিপিসি মার্কেটিং এর সাহায্যে যে কোন ওয়েবসাইটের অ্যাড তৈরি করে সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে  দেখানো যায়। 

SERP’র কোন পজিশনে কত পরিমান ভিজিটর পায় 

সাধারণত সার্চ ইঞ্জিনে কেউ কোন কিছু সার্চ করলে প্রথম পেইজে বেশি পরিমানে ক্লিক পড়ে। গড়ে প্রথম পেইজে সার্চ ইঞ্জিন গুলো রেজাল্ট দেখাতে পারে ১০ টি (কম বেশি করিয়ে নেওয়া যায়, তবে সাধারণ সেটিংস এ ১০টি থাকে)। এই দশটি পেইজের কোন পজিশনে সবচেয়ে বেশি পরিমানে ভিজিটর পায় এক নজরে দেখা যাক- 

প্রথম রেজল্ট   – ৩১.৭%

দ্বিতীয় রেজাল্ট –২৪.৭%

তৃতীয় রেজাল্ট  –১৮.৭%

চতুর্থ রেজাল্ট    –১৩.৬%

পঞ্চম রেজাল্ট  –৯.৫%

ষষ্ঠ রেজাল্ট      –৬.২%

সপ্তম রেজাল্ট  –৪.২%

অষ্টম রেজাল্ট –৩.১%

নবম রেজাল্ট  –৩%

দশম রেজাল্ট  –৩.১%

এই জরিপ থেকে দেখা যাচ্ছে সার্চ ইঞ্জিনে যার অবস্থান যত উপরে তার ভিজিটর সংখ্যা তত বেশি পরিমান। 

Leave a Reply

%d bloggers like this: